কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে সাইফুল হত্যা মামলায় আরো ১ আসামি গ্রেফতার: ৩ জন রিমান্ডে

কুমিল্লা

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সাইফুল ইসলাম কিরণ (৪২) নামে এক ব্যক্তিকে পিঠিয়ে হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত ৩ জনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। গ্রেপ্তারকৃতদের ৩ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত ১ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
অপরদিকে, গতকাল অভিযুক্ত অপর এক আসামিকে গ্রেফতার করে কুমিল্লা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত জসিম উদ্দিন (৪২) নাওতলা গ্রামের মৃত আবদুল লতিফের ছেলে। সে মামলার এজাহারভূক্ত ৮নং আসামি।
উল্লেখ্য, নিহত সাইফুল ইসলামের ছোট ভাই আরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে অভিযুক্ত ৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৩০/৩৫ নামে মনোহরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
ইতিপূর্বে গ্রেফতারকৃত মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাসনাবাদ উইনিয়নের নাওতলা গ্রামের ফয়েজ আহম্মদের স্ত্রী শিরিনা বেগম, জাহের আহাম্মদের স্ত্রী হাছিনা বেগম ও নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলার জুগিরপাড়া গ্রামের আব্দুল মালকের ছেলে মো. কামালের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত।
পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাসনাবাদ উইনিয়নের নাওতলা গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম কিরণের সাথে একই গ্রামের শাহাদাত হোসেন, ফয়েজ আহম্মদ ছালেহ আহম্মদ ও জাহের আহম্মদের পরিবারের সাথে জায়গা-সম্পত্তি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত দ্ব›দ্ব চলে আসছে। বর্তমানে দুই পক্ষের মধ্যে সম্পত্তির বিরোধ নিয়ে আদালতে মামলা চলমান। নিহত সাইফুল ইসলাম করণ চট্টগ্রামে রহম শিপিং সার্ভিসেস লিঃ কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। গত ২২শে নভেম্বর বিকেলে বাড়িতে আসেন তিনি। তার আগে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে অভিযুক্তরা সম্পত্তি দখলের জন্য প্রস্তুতি নেন। পরবর্তীতে রাত ৯টায় বিরোধকৃত সম্পত্তিতে সাইফুল ইসলামের পরিবার দখলে থাকায় অভিযুক্তরা বসত ঘরে হামলা ও ভাংচুর শুরু করে। পরে উপস্থিত সাইফুল ইসলাম তার বসত ঘরে হামলা ও ভাংচুরে বাধা দিলে অভিযুক্তরা তাকে দলবদ্ধভাবে লাঠিসোটা, হাতুড়ি ও শাবল দিয়ে পিঠিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা সাইফুল ইসলামকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সাইফুল ইসলামের মরহেদ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।
মনোহরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেছবাহ উদ্দিন ভুঁইয়া জানান, সাইফুল ইসলাম কিরন হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত অভিযুক্ত ৪ আসামিকে গ্রেপ্তার করে কুমিল্লা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মনোহরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মাহাবুবুল কবির বলেন, ইতিপূর্বে গ্রেপ্তারকতৃ ৩ আসামীর বিরুদ্ধে ৩ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে আদালত ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। মামলার বাকী আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।