ফেসবুকে গুজব রটনাকারী ৭০০ আইডি শনাক্ত করেছে ছাত্রলীগ

জাতীয়

ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেছেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে আজকে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যায়িত করতে বিভিন্নভাবে অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।’
সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে ৭০০টি ফেসবুক আইডি শনাক্ত করেছি এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়কে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছি।’

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত ‘সন্ত্রাস বিরোধী’ সমাবেশে এসব কথা বলেন রেজওয়ানুল হক। ছাত্রলীগ ওই সমাবেশের আয়োজন করে।
সমাবেশে ঢাবি, মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখা ছাত্রলীগের প্রায় ১০ হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।
সমাবেশে ছাত্রলীগে সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নেওয়ায় ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে না পারেনি বিএনপি। ফলে কোটা আন্দোলনের মতো লন্ডনের নতুন হাওয়া ভবন তাদের দেওয়া অর্থে জাফরুল্লাহ চোধুরী ও ড. কামালের প্রত্যক্ষ মদদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোকে ব্যবহার করে শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনকে (নিরাপদ সড়ক) ভন্ডুলের চেষ্টা করেছে। তবে তারা ব্যর্থ হয়েছে।’
রাব্বানী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যেই ৭০০টি ফেসবুক আইডি শনাক্ত করেছি এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়কে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছি।’ তিনি বলেন, ‘যারা ছাত্রলীগকে সন্ত্রাসী সংগঠন বানানোর অপচেষ্টা চালিয়েছে, তাদের সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে রাব্বানী বলেন, ‘এদেশের সাধারন শিক্ষার্থীরা কোন আন্দোলন করলে তাতে জামাত-শিবির ও ছাত্রদল শিক্ষার্থীদেরকে বিভ্রান্ত করে ফায়দা লুটতে চায়।’
ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, ‘জামাত-শিবির এসব আন্দোলনে অংশ নিতে পারে এ জন্য ছাত্রলীগের প্রত্যেক ইউনিটের নেতাকর্মীদের প্রতি আমাদের নির্দেশনা ছিল, তারা প্রত্যেক পয়েন্টে থাকবে, তবে কোন ধরনের সংঘর্ষে জড়াবে না। উপস্থিত থাকার কারণেই আন্দোলনের শেষের দিকে আমাদের ৭১ জন সহযোদ্ধা আহত হয়। কিন্তু আক্রান্ত হওয়ার পরও কোন সংঘর্ষে তারা যুক্ত হয় নি।’
সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন ঢাবি শাখার সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনসহ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *